সহজে চাকরি পাওয়ার সেরা ১০টি কিলার টেকনিক

সফল ক্যারিয়ার গঠনের ক্ষেত্রে অনেকেরই পছন্দের তালিকায় থাকে বিভিন্ন ধরনের চাকরি। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে চাকরি করার মাধ্যমে সফল ক্যারিয়ার গঠন করা অনেকটাই সহজ। চাকরির তুলনায় চাকরি প্রত্যাশীদের সংখ্যা বেশি হওয়ার কারণে চাকরি পাওয়া অনেকটাই দুষ্কর বিষয়। চাকরি পেতে হলে আপনাকে যেমন দক্ষতা ও যোগ্যতা সম্পন্ন হতে হবে, তেমনি আবার নির্দিষ্ট নিয়ম-কানুন অনুসরণ করার মাধ্যমে চাকরির খোঁজ করতে হবে। আপনি যদি সঠিক উপায়ে চাকরি খোঁজ না করেন, তবে কখনোই আপনি আপনার পছন্দের চাকরিটি পাবেন না।


অনেক দক্ষ ও অভিজ্ঞ চাকরি প্রার্থীদের ক্ষেত্রেও দেখা যায়, তারা সঠিক উপায় চাকরির খোঁজ না করার কারণে, পছন্দসই চাকরি পেতে ব্যর্থ হয়ে থাকে। সহজে পছন্দসই চাকরি পাওয়ার ক্ষেত্রে কিছু দিকনির্দেশনা ও পরামর্শ অনুসরণ করা আবশ্যক। আপনি যদি চাকরিপ্রার্থী হয়ে থাকেন এবং সহজেই আপনার পছন্দের চাকরিটি পেতে চান, তবে অবশ্যই এই আর্টিকেলটি পড়ুন। কারণ আমি এই আর্টিকেলটিতে এমন দশটি পরামর্শ ও দিকনির্দেশনা তুলে ধরবো, যেগুলো চাকরিপ্রার্থীকে চাকরি পাওয়ার ক্ষেত্রে সহায়ক ও অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে।

১. লক্ষ্য নির্দিষ্ট করুনঃ

আপনি কী ধরনের চাকরি করতে চান কিংবা কোন ক্ষেত্রে ক্যারিয়ার গড়তে চান, তা আগেই ঠিক করে নিন। কারণ আপনার লক্ষ্য যদি নির্দিষ্ট না থাকে, তবে যতই শিক্ষা ও দক্ষতা অর্জন করুন না কেনো, আপনি উন্নত ক্যারিয়ার গঠন করতে ব্যর্থ হবেন। তাই আপনি আপনার পছন্দ, যোগ্যতা ও দক্ষতা বিবেচনাপূর্বক চাকরির ক্ষেত্র নির্বাচন করুন। চাকরির ক্ষেত্র নির্দিষ্ট হলে, আপনার প্রস্তুতি নেওয়াও অনেক সহজ হয়ে যাবে। আর যথাপোযুক্ত প্রস্তুতি ক্যারিয়ার গঠনে কার্যকর ভূমিকা পালন করে থাকে।


২. প্রচেষ্টা শুরু করুনঃ

আপনার পছন্দের চাকরির ক্ষেত্র সম্পর্কে ধারণা নিয়ে, সে অনুযায়ী নিজেকে গঠন করার প্রতি মনোনিবেশ করুন। ধরুন, আপনি যদি ডাক্তার হতে চান, তবে আপনাকে সাইন্স নিয়ে পড়তে হবে এবং মেডিকেলে ভর্তির যোগ্যতা অর্জন করতে হবে। অন্যথায় আপনি ডাক্তার হিসেবে ক্যারিয়ার গঠন করতে পারবেন না। আবার আপনি যদি কর্পোরেট প্রতিষ্ঠান ক্যারিয়ার গঠন করতে চান, তবে সে অনুযায়ী নিজেকে যোগ্য করে গড়ে তুলতে হবে। এভাবে নিজের পছন্দের চাকরি ক্ষেত্র বিবেচনাপূর্বক প্রচেষ্টা চালিয়ে যেতে থাকলে, আপনার চাকরি পাওয়া অনেক সহজ হয়ে যাবে।


৩. অভিজ্ঞতা অর্জন করুনঃ

পড়াশোনা অবস্থায়ই স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ করে বিভিন্ন কাজের অভিজ্ঞতা অর্জন করা যায়। আর স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ করার মাধ্যমে অভিজ্ঞতা অর্জন করতে পারলে, তা আপনাকে চাকরির দৌঁড়ে অন্যদের চেয়ে অনেক বেশি এগিয়ে রাখবে। নিয়োগকর্তারা তাদের কর্মী নিয়োগ দেওয়ার ক্ষেত্রে সাধারণত অভিজ্ঞদেরই বাছাই করে থাকে। তাই কাজের অভিজ্ঞতা আপনাকে চাকরি পাওয়ার ক্ষেত্রে ব্যাপক সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।

 

৪. সিভি তৈরি করুনঃ

চাকরি পাওয়ার ক্ষেত্রে সিভিয়ের ভূমিকা অনস্বীকার্য। নিয়োগকর্তারা সিভি দেখেই আপনার সম্পর্কে ধারণা অর্জন করবে। তাই আপনি আপনার যোগ্যতা এবং দক্ষতাগুলোকে সুস্পষ্টভাবে সিভিতে উল্লেখ করুন। আকর্ষণীয় সিভি চাকরিপ্রার্থীর চাকরি পাওয়ার ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে। আপনার সিভি যদি সমৃদ্ধ হয়, তবে নিয়োগকর্তাদের আকৃষ্ট করতে আপনাকে তেমন কোনো বেগ পেতে হবে না। অনেক সময় সিভি দেখেই নিয়োগকর্তারা তাদের কর্মী নির্দিষ্ট করে ফেলে। তাই আপনি আপনার সিভি তৈরির ব্যাপারে বিশেষ যত্নবান হোন।



৫. চাকরির খোঁজ করুনঃ

আপনার শুধু যোগ্যতা ও দক্ষতা থাকলেই চাকরি পাবেন না, বরং আপনাকে চাকরি খোঁজ করতে হবে। নিয়োগকর্তারা সাধারণত কখনোই আপনাকে খুঁজে নিয়ে চাকরি দেবে না। আপনাকেই নিয়োগকর্তাদের কাছে পৌঁছাতে হবে। তাই আপনি আপনার পছন্দের চাকরিগুলো খোঁজ করতে থাকুন। বর্তমানে ঘরে বসেই অনলাইনে চাকরির খোঁজ-খবর নেওয়া যায়। তাই চাকরি খোঁজ করতে আপনাকে তেমন কোনো কষ্ট পোহাতে হবে না।


৬. নেটওয়ার্ক গড়ে তুলুনঃ

চাকরি পাওয়ার ক্ষেত্রে নেটওয়ার্কিয়ের কার্যকারিতা অপরিসীম। আপনার যদি শক্তিশালী নেটওয়ার্কিং থাকে, তবে আপনার চাকরি পাওয়া অনেক সহজ হয়ে যাবে। বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ালেখাকালীন সময়ে বিভিন্ন অঙ্গ-সংস্থার সঙ্গে কাজ করার মাধ্যমে সহজেই নেটওয়ার্কিং গড়ে তোলা যায়। আবার বর্তমান সময়ে সোশ্যাল মিডিয়া ও ইন্টারনেটের মাধ্যমে খুব সহজেই শক্তিশালী নেটওয়ার্ক গড়ে তোলা সম্ভব। তাই আপনাকে অবশ্যই নেটওয়ার্ক গড়ে তোলার পিছনে চেষ্টা চালাতে হবে।

৭. ইন্টারভিউয়ের জন্য প্রস্তুতি নিনঃ

চাকরি পাওয়ার ক্ষেত্রে ইন্টারভিউ গুরুত্বপূর্ণ একটি পর্যায়। আপনি যদি সাক্ষাৎকার প্রদানের ক্ষেত্রে নিজের যোগ্যতাকে সুন্দর ও পরিপাটি ভাবে উপস্থাপন করতে পারেন, তবে আপনার প্রতি নিয়োগকর্তারা সহজেই আকৃষ্ট হবে। আর নিয়োগকর্তারা আকৃষ্ট হলে আপনার চাকরি অনেকটাই নিশ্চিত হয়ে যাবে। তাই ইন্টারভিউয়ের জন্য নিজেকে প্রস্তুত করে তুলুন। ইন্টারভিউয়ে চাকরিপ্রার্থীকে সাধারণত বেশকিছু সাধারণ প্রশ্ন করা হয়ে থাকে। সাক্ষাৎকার দিতে যাওয়ার পূর্বেই এসব প্রশ্ন সম্পর্কে ধারণা নিয়ে রাখুন। আর অবশ্যই পরিপাটি পোশাক পরিধান করে ভাইভা বোর্ডে উপস্থিত হবেন।

৮. শারীরিক ভাষা প্রতি লক্ষ্য রাখুনঃ

আপনি যখন সাক্ষাৎকার দিতে উপস্থিত হবেন, তখন আপনার শারীরিক ভাষাকে যথাসম্ভব মানানসই ও যুগোপযোগী রাখার চেষ্টা করুন। কর্পোরেট জগতে ক্যারিয়ার গঠন করার ক্ষেত্রে শারীরিক ভাষার প্রতি নিয়োগকর্তারা বিশেষ খেয়াল রাখেন। কারণ বডি ল্যাঙ্গুয়েজ যদি যথোপযুক্ত না হয়, তবে ঐ কর্মীর দ্বারা প্রতিষ্ঠান তেমন একটা উপকার লাভ করতে পারে না। কর্পোরেট ছাড়াও সকল চাকরি ক্ষেত্রেই শারীরিক ভাষা বিশেষ গুরত্ব বহন করে। ফলে নিয়োগকর্তারা তাদের কর্মী বাছাইয়ের ক্ষেত্রে বডি ল্যাঙ্গুয়েজের প্রতি বিশেষ দৃষ্টিপাত করে থাকে। আপনার শারীরিক ভাষা যদি নিয়োগকর্তাদের আকৃষ্ট করতে পারে, তবে আপনার চাকরি পাওয়া অনেকটাই নিশ্চিত হয়ে যাবে।

৯. আত্মবিশ্বাস ধরে রাখুনঃ

অনেকেই চাকরি না পেয়ে হতাশ হয়ে পড়ে। এই হতাশা ব্যক্তির স্বাভাবিক কার্যক্ষমতাকে অনেক সময়ই নিষ্ক্রিয় করে দেয়। ফলে এই ব্যক্তির পক্ষে নিজের দক্ষতা ও যোগ্যতার যথাযথ প্রমাণ উপস্থাপন করা সম্ভব হয় না। তাই আপনি চাকরির নিয়োগকর্তাদের দ্বারা থেকে ইতিবাচক সাড়া না পেলেও হতাশ হবেন না। বরং আত্মবিশ্বাস ঠিকমতো ধরে রাখুন এবং বিভিন্ন চাকরির ইন্টারভিউ মোকাবেলা করুন। এতে আপনার একদিকে অভিজ্ঞতা অর্জন হবে অপরদিকে আপনি চাকরি পাওয়ার দিকে ক্রমাগত অগ্রসর হতে সক্ষম হবেন।

১০. ভুল থেকে শিক্ষা নিনঃ

মানুষ মাত্রই ভুল করে থাকে, তাই আপনিও ভুল করবেন; এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু একই ভুল ক্রমাগত করা যাবে না। ভুল থেকে আপনাকে শিক্ষা নিয়ে যথাসম্ভব সংশোধন করার মাধ্যমে, নিজেকে উপযুক্ত হিসেবে গড়ে তোলার পিছনে মনোযোগী হতে হবে। এক্ষেত্রে আপনি অন্যান্য অভিজ্ঞ ব্যক্তির পরামর্শও গ্রহণ করতে পারেন। অন্যদের থেকে পরামর্শ নিলে নিজের ভুলকে সংশোধন করা অনেকটাই সহজ হয়ে যায়।

একজন চাকরিপ্রত্যাশীর জন্য এই ১০টি উপদেশ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপনি যদি চাকরি প্রত্যাশী হয়ে থাকেন, তবে অবশ্যই এই পরামর্শগুলো প্রতি বিশেষ খেয়াল রাখুন। এসব পরামর্শ ও দিকনির্দেশনাগুলো অনুসরণ করলে, আপনার চাকরি পাওয়া অনেক সহজ হয়ে যাবে। আর আপনি যদি আপনার পছন্দের চাকরি পেয়ে যান, তবে আপনি খুব সহজেই একটি সফল ক্যারিয়ার গঠন করতে সক্ষম হবেন।

 

Leave a Comment

WIN A FREE IPHONE

TO WIN A FREE IPHONE CLICK THE LINK BELOW